Saturday, November 5, 2022

৫ টি হিন্দি সিনেমা বছরের পর বছর ধরে বক্স অফিস কাঁপিয়েছে

সিনেমা মানে বরাবরই দর্শকদের বিনোদনের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ। তবে একথা ঠিক সময়ের সাথেই বদলেছে সিনেমা প্রমী রুচি।যার ফলে বদলেছে সিনেমার বিষয়বস্তু। এখন খুঁটিনাটি নানান পরীক্ষা নিরীক্ষার মধ্যে দিয়ে তবে তৈরি করা হচ্ছে সিনেমা। তবে এখন সিনেমার বিষয়বস্তু তে এসেছে অনেক নতুনত্ব। তাই এখনকার দিনের সিনেমা শুধুমাত্র বক্সঅফিসে হলে মুক্তির জন্যই নয় তৈরি হয় না।

সমাজের মানুষের উদ্দেশ্যে বিশেষ কিছু বার্তা দিতেও তৈরি হয় আজকালকার সিনেমা। তবে এখন দেখা যায় বেশীরভাগ সিনেমাই বক্স অফিসে বড়জোর এক সপ্তাহ চলে। তবে একটা সময় ছিল যখন বক্স অফিসে কোনো সিনেমা মুক্তি পাওয়া মানেই তা দীর্ঘদিন ধরে চলত। প্রসঙ্গত আশি থেকে নব্বই দশকের এমন বেশকিছু সিনেমা আছে যা মুক্তির পরেও দীর্ঘ প্রায় এক বছরের বেশি সময় ধরে সিনেমা হল গুলিতে রমরমিয়ে চলেছে। আজ এখানে বলিউডের এমনই পাঁচটি সিনেমার কথা বলা হল যা মুক্তির পর দীর্ঘদিন ধরে সিনেমা হলে ব্যবসা করে চলেছে।

১) দিলওয়ালে দুলহানিয়া লে জায়েঙ্গে (Dilwale Dulhaniya Le Jayenge)

বলিউডের সিনেমাপ্রেমী যেকোনো দর্শক এক্ষেত্রে সবার প্রথমেই একেবারে চোখ বন্ধ করে যে সিনেমার নাম নেবেন সেটি নিঃসন্দেহে শাহরুখ-কাজল অভিনীত সুপার ডুপার হিট সিনেমা ‘দিলওয়ালে দুলহানিয়া লে জায়েঙ্গে’। ১৯৯৫ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত এই বলিউড সিনেমাটি আজও দর্শকদের কাছে সমান জনপ্রিয়। এই সিনেমার প্রতিটি গান থেকে শুরু করে সংলাপ আজও ঘুরতে থাকে সিনেমাপ্রেমীদের মুখে মুখে। প্রসঙ্গত রাজ সিমরানের এই প্রেম কাহিনী ভারতীয় সিনেমার ইতিহাসে সবচেয়ে বেশিদিন সিনেমা হলে চলতে থাকা রেকর্ড সৃষ্টিকারী একটি সিনেমা। ১৯৯৫ সালের ২০ অক্টোবর মুক্তির পর থেকে এই সিনেমাটি মুম্বাইয়ের মারাঠা মন্দির সিনেমা হলে দীর্ঘ ২৬ বছরেরও অধিক সময় ধরে চলছে।

২) ম্যায়নে পেয়ার কিয়া (Maine Pyaar Kiya)

এখনও পর্যন্ত বলিউডের মোস্ট এলিজেবেল ব্যাচেলর হলেন সালমান খান। তাঁর ক্যারিয়ারের শুরুর দিকের অন্যতম ব্লকবাস্টার হিট সিনেমা হল ‘ম্যায়নে পেয়ার কিয়া’। এই সিনেমায় সেসময় সালমান খানের চকলেট বয় লুক সেসময় রাতের ঘুম উড়িয়েছিল দেশের অসংখ্য তরুণীর। এই সিনেমায় সালমান খানের বিপরীতে মুখ্য চরিত্র ‘সুমন’-এর ভূমিকায় অভিনয় করেছিলেন বলিউডের অন্যতম মিষ্টি নায়িকা ভাগ্যশ্রী।ভাগ্যশ্রীর রূপের জাদুতে আজও মুগ্ধ গোটা দেশ। আর সেসময় ‘ম্যায়নে পেয়ার কিয়া’ সিনেমার হাত ধরেই বিপুল জনপ্রিয়তা পেয়েছিলেন অভিনেত্রী। সেই সময় সিনেমাটি বক্স অফিসে ১০০ সপ্তাহের বেশি সময় ধরে চলেছিল। আসলে যে সময় এই সিনেমাটির মুক্তি পেয়েছিল তার আগে বেশিরভাগ সিনেমাতেই হিংসা নইলে মারামারি দেখানো হতো। তাই সেসময় এই ধরনের পারিবারিক ড্রামা মুক্তি পাওয়ায় তা দারুণ পছন্দ হয়েছিল দর্শকদের।

৩)শোলে (Sholay)

হিন্দি সিনেমার ইতিহাসে অন্যতম যুগান্তকারী একটি সিনেমা হল শোলে। সিনেমাপ্রেমীদের কাছে এই সিনেমার নামটাই যথেষ্ট। তাই আলাদা করে শোলে সিনেমা নিয়ে গৌরচন্দ্রিকা করার প্রয়োজন পড়ে না। ১৯৭৫ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ব্লকবাস্টার হিট এই সিনেমার মুখ্য চরিত্র জয় বীরুর ভূমিকায় অভিনয় করেছিলেন অভিনেতা অমিতাভ বচ্চন এবং ধর্মেন্দ্র। এই সিনেমার হাত ধরেই গোটা ইন্ডাস্ট্রিতে আজও তাঁরা জয়-বীরু নামেই পরিচিত। জানা যায় মুক্তির পর থেকে সিনেমাটি দীর্ঘ পাঁচ বছর ধরে সিনেমাহলে চলেছিল। প্রসঙ্গত শুরু থেকেই সিনেমা প্রেমীদের কাছে এই সিনেমার মূল আকর্ষণ সিনেমার ছিল গল্প, দুর্দান্ত স্টার কাস্ট আর মুখ্য চরিত্রে থাকার জয়-বীরুর অসাধারণ কেমিস্ট্রি। যা চিরকালের জন্য দাগ কেটে গিয়েছে দর্শকদের মনে। উল্লেখ্য জনপ্রিয় একশন ড্রামাটি পরবর্তীতে ২০১৪ সালে আবার থ্রিডি ফরম্যাটে রিলিজ করা হয়েছিল।

৪) মুঘল-এ-আজম (Mughle Azam)

ভারতীয় সিনেমার ইতিহাসে নতুন দিগন্ত সৃষ্টিকারী জনপ্রিয় একটি সিনেমা হল ‘মুঘল-এ-আজম’। সিনেমাটির দুর্দান্ত স্টার কাস্ট থেকে শুরু করে স্ক্রিনপ্লে মন জয় করে নিয়েছিল দর্শকদের। বক্স অফিসে দীর্ঘমেয়াদী সিনেমা গুলির মধ্যে অন্যতম এই সিনেমাটি প্রায় তিন বছর চলে ছিল বলে জানা যায়। এই সিনেমায় রোমান্স কিং দিলীপ কুমার, মধুবালা এবং পৃথ্বীরাজ কাপুরের মত খ্যাতনামা তারকারা নিজেদের অভিনয় দক্ষতা দিয়ে দর্শকদের মনে একটা পাকাপাকি জায়গা তৈরি করে নিয়েছিলেন।

৫) বরসাত ( Barsat)

ভারতীয় সিনেমার কিংবদন্তি অভিনেতা রাজ কাপুর অভিনীত প্রথম সিনেমা নাম হল ‘বারসাত’। আর কে স্টুডিওজের ব্যানারে তৈরি এই সিনেমাটি রিলিজ করেছিল ১৯৪৯ সালে। গান আর রোম্যান্সে ভরপুর এই সিনেমায় রাজ কাপুরের বিপরীতে অভিনয় করেছিলেন জনপ্রিয় অভিনেত্রী নারগিস।বলা হয় এই সিনেমাটি বড়পর্দায় প্রায় ১০০ সপ্তাহ অর্থাৎ প্রায় ২ বছর পর্যন্ত চলেছিল।

Latest news
Related news