Saturday, October 22, 2022

‘বলিউডে নিয়মিত গাইলে সেখানে থাকতে হতো, এটা আমার পক্ষে সম্ভব না’!

সব সময় তিনি নিজের নিজের চারপাশে একটা অদৃশ্য পর্দা রেখে চলাচল করেন। ভক্তরা তাকে শেষ কবে হাসতে দেখেছেন মনে নেই হয়তো। গানের বাইরে তার যাপিত জীবন নিয়ে কৌতুহল থাকলেও অজানাই সব। তার গাম্ভির্যপূর্ণ চেহারা ভক্তদের কাছে অতি প্রিয়।

তিনি ফারুক মাহফুজ আনাম। জেমস নামেই পরিচিত। ভক্তদের কাছে ‘গুরু’। জেমসের গান মানেই তারুণ্যের উন্মাদনা। বাবরি দোলানো গানের তালে মেতে ওঠে যুবক মন। তার কনসার্টে জেগে ওঠে ভালোবাসার উদ্দীপনা।

সেই জেমস তার চিরায়ত খোলস ছেড়ে বের হয়ে এলেন শুক্রবার। রাজধানীর গুলশান ক্লাবে আড্ডা দিলেন, নানা বিষয়ে খোলামেলা কথা বললেন। কথার ফাঁকে ফাঁকে হাসলেনও।

আড্ডার শুরুতেই দিলেন নতুন গানের খবর। আসছে চাঁদরাতে বসুন্ধরা ডিজিটালে শোনা যাবে তার গান। শুধু গান নয়, ভিডিওচিত্রে দেখাও যাবে। গানের শিরোনাম ‘আই লাভ ইউ’।

নিজেই লিখেছেন, সুর করেছেন। আর ভিডিও বানিয়েছেন শাহরিয়ার পলক।জেমসের ভাষ্য, ‘গানটি আমাকে যারা ভালোবাসেন, আমার গান শুনতে যারা মাঠে ময়দানে যান, সেইসব ভালোবাসার মানুষের জন্য।’

‘বহুদিন পর নতুন গান বাঁধলাম। তবে এইবার গানটির বিষয় নির্বাচন একেবারেই ভিন্নতর। গানটি আমি আমার ভক্তদের উদ্দেশ্যে করে বেঁধেছি, সুর করেছি, কম্পজিশন করেছি।

এর বিষয় বৈচিত্রে ঠাই পেয়েছে দীর্ঘ চার দশক ধরে মঞ্চ কিংবা সর্বত্র আমার সঙ্গে ভক্তদের বয়ে চলা, অপরিসীম ভালোবাসার সম্পর্ক। এই গানটি ভক্তদের উদ্দেশ্যে গেয়েছি এবং তাদেরই উৎসর্গ করেছি,’ বলছিলেন তিনি।

প্রথমে মাত্র আড়াই মিনিটের বক্তব্য শেষ করে কথা বলেন সাংবাদিকদের সঙ্গে। তবে তার আগে জানান, নতুন এই গানটি তৈরি করতে পূর্ণ স্বাধীনতা দিয়েছে প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান বসুন্ধরা ডিজিটাল। এই কারণে গানটি করা।

গত প্রায় চার দশকে দারুণ সব গান উপহার দিয়েছেন জেমস। মাতিয়েছেন বলিউডও। কিন্তু নিজের সম্পর্কে জানতে দেননি খুব একটা। জেমসের কাছে প্রশ্ন মানেই ছিলো অনেকটা বিরক্তির কারণ। সেই জেমস কিনা একের পর এক প্রশ্নের উত্তর দিলেন!

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নে তিনি জানালেন, তার যাপিত জীবনের কথা। জেমস জানান, সকাল আটটার মধ্যেই তিনি ঘুম থেকে উঠে পড়েন। ঘুমাতে যান রাত ১২টার মধ্যে। সাধারণ খাবার-দাবার আর অন্য সবার মতোই জীপনযাপন করেন তিনি।

অবসরে শখের বসে বিভিন্ন জিনিসের ছবি তোলেন। তার খুব ইচ্ছে কবি নির্মলেন্দু গুণের ছবি তোলার।নতুন গান করতে ১২ বছর বিরতি কেন? জানান, এটা আসলে হয়ে গেছে। হয়তো ১১ বছর পর হতে পারতো কিংবা ১৩ বছর পর।

কিন্তু সেটা হয়নি। তার চারপাশের মানুষ, বন্ধু, শুভাকাঙ্খি চাইছিলেন নতুন একটা গান হোক। তাই করে ফেলা।গত চার দশক ধরে জেমস মানেই উম্মাদনা। হবেই বা না কেন!

ব্যান্ড সংগীতের নতুনধারা কিংবা শব্দ, কথা আর সুরের অপূর্ব জাদু- এসব তো জেমসসহ ওই সময়ের ব্যান্ডের মহারথীদের হাত ধরেই। তবে একেকটি গান তরুণদের উম্মাদনার গল্প হবে-এসব কিছু ভেবে ওই সময় গান করেননি বলে জানান জেমস।

বলেন, “ওই সময় যখন যা ভালো লাগত সেটাই করতাম। কোনো কিছু ভেবে গান করা হয়নি। সবার আগে প্রাধান্য পেত ভালো লাগা।”একটা সময় ছিল ঈদসহ নানা উৎসবে প্রকাশ পেত জেমসের গান।

অডিও ক্যাসেটের সেই অ্যালবামের সঙ্গে থাকত দারুণ সব কাভার এবং পোস্টার। সেই দিন গত হয়েছে অনেক বছর। এখন গান মানে একটা সিঙ্গেল। শুনতে হয় ইউটিউব বা অন্য কোনো অনলাইন মাধ্যমে।

তাহলে ভক্তদের নতুন গানের তৃষ্ণা মিটলেও ‘গুরু’র ছবি বা পোষ্টার জমিয়ে রাখার ক্ষুধা কি মিটবে?জেমস বলেন, ‘এটা আসলেই দুঃখজনক। আমরা ওই সময়টা পার করে এসেছি। সবকিছু ডিজিটাল হয়ে গেছে।

অ্যালবাম প্রকাশ বন্ধ হয়ে গেলো। নিজেদের কাছে রেখে দেওয়ার মতো আর কিছুই নেই। তবে বসুন্ধরা ডিজিটাল চিন্তা করছে অ্যালবাম আকারে আমার গান বের করা যায় কিনা।’

নগরবাউল শুধু বাংলাদেশের তুমুল জনপ্রিয় এমন নয়। বলিউডেও পৌঁছেছে তার কণ্ঠ। ‘ভিগি ভিগি’ দিয়ে মাত করেছেন বলিউড তথা এই উপমহাদেশের সংগীতপ্রেমীদের। কিন্তু বলিউডে স্থায়ী হননি এই শিল্পী।

জানতে চাওয়া হয় সেই প্রসঙ্গেও। তিনি বলেন, ‘বলিউডে নিয়মিত গান করতে চাইলে সেখানে থাকতে হতো আমাকে। আমি দেশ ছেড়ে কোথাও যেতে চাই না, থাকতে চাই না। এটা সম্ভব না আমার পক্ষে।’

সবশেষে ভক্তদের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘আমি এই দেশে জন্মে অনেক সন্মান ও ভালোবাসা পেয়েছি। এটাই আমার জীবনের শ্রেষ্ঠ অর্জন।’ দর্শকদের অনুরোধ করেন তার নতুন গান শোনার। কনসার্টে দাঁড়িয়ে বলা কথা শেষ কথার মতো করেই বলেন, ‘লাভ ইউ অল’।

Latest news
Related news