Friday, October 21, 2022

বাসচালকের ছেলের সুপারস্টার হয়ে ওঠার গল্প

যশ- নাম শুনলেই চোখের সামনে ভেসে ওঠে বুনো চেহারার এক তরুণের মুখ। বড় চুল ও দাড়ি-গোঁফে ঢাকা সেই তরুণে বর্তমানে বুঁদ হয়ে আছেন সবাই। সদ্য মুক্তিপ্রাপ্ত ‘কেজিএফ টু’ সিনেমায় এমন এক চরিত্রে দেখা গেছে যশকে।

দক্ষিণী সিনেমার জনপ্রিয় নায়কদের মধ্যে অন্যতম যশ। তিনি ১৯৮৬ সালের ৮ জানুয়ারি ভারতের কর্ণাটক রাজ্যে জন্মগ্রহণ করেন। তার পারিবারিক নাম নভীন কুমার গৌড়। মধ্যবিত্ত ঘরের ছেলে ছিলেন নভীন।

তার বাবা অরুন কুমার ছিলেন একজন বাস ড্রাইভার। বাস চালকের ছেলে হওয়ায় শৈশব খুব একটা মসৃণ ছিল না তার। ছোটবেলা থেকেই আর্থিক টানাপোড়নের মধ্যে বড় হতে হয়েছে তাকে।

যশের অভিনয়ের শুরুটা ছিল থিয়েটারের মাধ্যমে। তবে পর্দায় নাম লেখাতে বেশি সময় নেননি তিনি। ২০০৪ সালে একটি টিভি সিরিয়ালে অভিনয়ের মাধ্যমে পর্দায় অভিষেক ঘটে তার।

সিরিয়ালটির নাম ছিল ‘নন্দা গোকুলা’। এরপর বেশকিছু টিভি সিরিয়ালে অভিনয় করেন যশ। সেসব সিরিয়াল তাকে বেশ পরিচিতি এনে দিয়েছিল। জানান দিয়েছিল তার অভিনয় দক্ষতার।

ছোটপর্দায় নিজেকে প্রমাণের তিন বছরের মাথায় যশ ডাক পান বড়পর্দায়। সিনেমাটির নাম ছিল ‘জাম্ভাদা হুদুগি’। এতে ছোটখাট একটি চরিত্রে অভিনয় করেন যশ। চলচ্চিত্রটিতে অভিনয়ের সুযোগ কম থাকলেও সবার নজর কাড়তে সক্ষম হয়েছিলেন তিনি।

এরপর বেশকিছু সিনেমায় অভিনয় করেন যশ। সিনেমাগুলোর কোনোটায় তাকে দেখা যায় পার্শ্ব চরিত্রে। আবার কোনোটায় মূল চরিত্রেও দেখা যায় তাকে। এই সিনেমাগুলো তাকে অল্পস্বল্প পরিচিতি ও দু- একটি পুরস্কার এনে দিয়েছিল।

তবে তারকাখ্যাতি তখনো ছুঁয়ে যায়নি তাকে। যশ তারকাখ্যাতি পান ২০১০ সালে। সে বছর তিনি অভিনয় করেন ‘মদালাসালা’ নামক একটি চলচ্চিত্রে। সিনেমাটি দারুণভাবে ব্যবসায়িক সফলতা লাভ করে। সেই সাথে যশকেও এনে দেয় তারকাখ্যাতি।

এরপর আর পেছনে তাকাতে হয়নি কন্নড় এই অভিনেতাকে। একের পর এক জনপ্রিয় সিনেমা উপহার দিতে থাকেন তিনি। নিজেও হতে থাকেন জনপ্রিয় থেকে জনপ্রিয়। যশ অভিনীত সেসময়কার চলচ্চিত্রগুলোর মধ্যে অন্যতম ‘রাজধানী’, ‘লাকি’, ‘জানু’, ‘মি. অ্যান্ড মিসেস’ প্রভৃতি।

তারপর থেকে জনপ্রিয়তার হাত ধরেই ছুটছিলেন যশ। সময়টা ২০১৮ সাল। যশ এবার যুক্ত হন তার ক্যারিয়ারের সবচেয়ে ব্যবসাসফল সিনেমা ‘কেজিএফ’র সঙ্গে। মুক্তির পরই হইচই ফেলে দেয় সিনেমাটি।

দক্ষিণী সীমানার গন্ডি পেরিয়ে দখল করে নেয় ভারত ও তার পার্শ্ববর্তী দেশের দর্শকের হৃদয়। প্রশান্ত নীল নির্মিত এই সিনেমাটি যশকে রাতারাতি এনে দেয় সুপারস্টারের খ্যাতি। তারই ধারাবাহিকতায় কদিন হলো মুক্তি পেয়েছে ‘কেজিএফ’ সিনেমার সিকুয়েল ‘কেজিএফ টু’।

মুক্তির প্রথম দিন ‘কেজিএফ টু’র ঝড়ে উড়ে গেছে বেশকিছু সিনেমার রেকর্ড। সে খবর সবার জানা। এভাবেই রচিত হয়েছে বাস চালকের ছেলে নভীন কুমার থেকে একজন সুপারস্টার যশ হয়ে ওঠার গল্প।

Latest news
Related news