শা’রীরিক মি’লনে বাধ্য করছেন স্বামী? কীভাবে সামলাবেন সেই পরিস্থিতি?

Share

পুরুষ এবং নারী, দুই পক্ষের কাছেই যৌনতা একটি স্বাভাবিক চাহিদা। আবার তৃতীয় লিঙ্গের ক্ষেত্রেও এই ইচ্ছে সমান প্রাসঙ্গিক। যৌন ইচ্ছে জাগলে তবেই যৌন ক্রীড়ায় স্বাভাবিক অংশগ্রহণ সম্ভব।

অন্তত এমনটাই মনে করেন মনোবিদদের একটা বড় অংশ। যৌনতা বিভিন্ন সম্পর্কে আসতেই পারে। বিবাহিত সম্পর্কে যৌনতা যেমন স্বাভাবিক বলেই ধরে নেওয়া হয় ভারতীয় সমাজে।

কিন্তু কখনও ভেবে দেখেছেন, আপনার স্বামীর (husband) সঙ্গে যৌন ক্রীড়ায় অংশ নিতে যদি আপনার ইচ্ছে না করে, তার পরিণতি কী? এমন কোনও-কোনও দিন তো হতেই পারে,

আপনার স্বামীর ইচ্ছে থাকলেও আপনি ইচ্ছুক নন। আপনার অনিচ্ছে সত্ত্বেও কি যৌনতায় অংশ নিতে জোর করেন আপনার স্বামী? যদি পরিস্থিতি তেমন হয়, কীভাবে সামলাবেন?

না বলতে শিখুন
আপনার ইচ্ছের বিরুদ্ধে কেউ আপনাকে যৌন সম্পর্ক স্থাপন করতে বাধ্য করতে পারেন না। এই ‘কেউ’টি তিনি আপনার স্বামী বা পার্টনার, যে কেউ হতে পারেন। কিন্তু আপনার ইচ্ছেটা সবার আগে জরুরি। তাই স্পষ্ট ভাবে ‘না’ বলতে শিখুন।

আলোচনার জায়গা রাখুন
যৌনতা নিয়ে স্বামীর সঙ্গে আলোচনার জায়গা সব সময়ই খোলা রাখুন। কেন আপনার কোনও একদিন ইচ্ছে করছে না, তা বুঝিয়ে বললে অনেক জটিলতা কেটে যায় অনায়াসে।

ধরুন যৌন সম্পর্কের সময় আপনার ব্যথা লাগে। অথবা জ্বালা অনুভব করেন। বিভিন্ন কারণে এই ধরনের সমস্যা হতে পারে। সে কারণেই হয়তো যৌন সম্পর্কে আপনি আগ্রহ হারিয়ে ফেলছেন।

অথচ আপনার সমস্যার কারণ জানেন না আপনার স্বামী। তিনি আপনাকে জোর করছেন নিয়মিত। ফলে শারীরিক সমস্যা লুকিয়ে না রেখে তা স্বীকার করুন। প্রয়োজনে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

স্বামী কেন জোর করছেন, বুঝতে চেষ্টা করুন
আপনাদের যৌন সম্পর্ক যদি প্রথম থেকেই বলপূর্বক হয়, তা হলে কিন্তু গোড়ায় গলদ। আর তা যদি না হয়, হঠাৎ করেই যদি সম্পর্কের স্বাভাবিক ছন্দের বাইরে গিয়ে যৌন সম্পর্ক তৈরি করার জন্য স্বামী জোর করতে থাকেন,

তা হলে তার কারণ বোঝার চেষ্টা করুন। শুধুই শারীরিক চাহিদা নাকি এর পিছনে কোনও জটিল মনস্তত্ব রয়েছে, তা খুঁজতে প্রয়োজনে বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।

আপনি জাজমেন্টাল হয়ে যাচ্ছেন না তো?
সব শেষে নিজেকে বিচার করুন। আপনার স্বামী হয়তো স্বাভাবিক আচরণ করছেন। আপনারই কোথাও মনে হচ্ছে, তিনি যৌন সম্পর্ক স্থাপনে জোর করছেন। ঘটনাটা এমন নয় তো?

যদি নিজের ভুল বুঝতে পারেন, তা স্বীকার করুন। তা সমাধানে স্বামী তো বটেই, প্রয়োজনে প্রফেশনাল হেল্প নিন। তবে দিনের শেষে মনে রাখবেন, আপনার সিদ্ধান্তই শেষ কথা।

আপনার মতের বিরুদ্ধে কেউ আপনাকে যৌন সম্পর্ক স্থাপনে জোর করতে পারেন না। কিন্তু আপনার সিদ্ধান্ত সঠিক কিনা, তা-ও একবার যাচাই করে নেওয়ার প্রয়োজন আছে বৈকি!

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *