বিশ্ববিদ্যালয়ে ইংরেজি বিভাগে ভর্তি হলেন যশোরের সেই তামান্না

Share

যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (যবিপ্রবি) ইংরেজি বিভাগে ভর্তি হয়েছেন এক পায়ে লেখা অদম্য মেধাবী তামান্না। যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার বাঁকড়ার আলীপুরের মেয়ে প্রতিবন্ধী তামান্না আক্তার নূরার একটি পা-ই সম্বল। সেই পা দিয়ে লিখে তিনি এসএসসি, এইচএসসি সফলতার সঙ্গে পাস করেছেন। শুভকামনা পেয়েছেন বঙ্গবন্ধুর দুই কন্যার।

যবিপ্রবিতে তামান্নার ভর্তি হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়টির উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আনোয়ার হোসেন। তিনি জানান, গত ২১ ডিসেম্বর ইংরেজি বিভাগে ভর্তি হন তামান্না।

তামান্নার স্বপ্ন ছিল অণুজীব বিজ্ঞান বিভাগ নিয়ে পড়ার। এ বিষয়ে তামান্না বলেন, ‘আমি যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (যবিপ্রবি) অণুজীব বিজ্ঞান বিভাগে পড়তে চেয়েছিলাম। কিন্তু আমার শারীরিক অবস্থা বিবেচনা করে উপাচার্য স্যারের পরামর্শে ইংরেজি বিভাগে ভর্তি হই। নবম শ্রেণিতে থাকা অবস্থায় ভিসি স্যার সবরকম সাহায্য-সহযোগিতার মাধ্যমে আমার পাশে ছিলেন। এমনকি সবসময় উৎসাহ দিয়েছেন।’

তামান্না আক্তার নুরা অনুভূতি ব্যক্ত করে বলেন, ‘শক্তি ও সাহস আমাকে পথ দেখিয়েছে। আমি খুব আনন্দিত যে আজ আমার বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার স্বপ্ন পূরণ করতে পেরেছি। আমি কৃতজ্ঞতা জানাই মহান আল্লাহ, পিতা-মাতা, শিক্ষক ও প্রতিবেশীর প্রতি।’

ইংরেজিতে ভর্তি হওয়ার বিষয়ে যবিপ্রবি’র উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আনোয়ার হোসেন বলেন, ‘অণুজীব বিজ্ঞানে পড়তে হলে যথাযথ সতর্কতা ও গবেষণার জন্যে কিছু নিয়ম মেনে চলতে হয়। গবেষণার কাজটি তামান্নার জন্য কষ্টসাধ্য ব্যাপার। তাছাড়া, অণুজীব বিজ্ঞানে ভর্তি হলে হাতে-কলমে ব্যবহারিক কাজ করতে হয়। তা না করলে এ বিষয়ের কিছুই বোঝা যায় না। এজন্য তার শারীরিক প্রতিবন্ধকতার বিষয়টি বিবেচনা করে তাকে ইংরেজি বিভাগে পড়ার সুযোগ দেওয়া হয়েছে। তামান্না অত্যন্ত মেধাবী। সে ইংরেজি বিভাগে পড়লে খুব ভালো করবে। এমনকি সে ভালো ফলাফল করলে বিশ্ববিদ্যালয় তাকে চাকরিও দিতে পারবে।’

তামান্না প্রতিবন্ধী হওয়ায় বিশেষ সুবিধা দেওয়া হবে কি না জানতে চাইলে উপাচার্য বলেন, ‘তামান্নার জন্য নবনির্মিত বীরপ্রতীক তারামন বিবি হলে অধিক সুযোগ-সুবিধা সম্পন্ন কক্ষ বরাদ্দ করা হবে। যাতে তার হলে থেকে পড়ালেখা করতে কোনো সমস্যা না হয়।’

প্রসঙ্গত, ২২টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের সমন্বয়ে গুচ্ছের ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয় তামান্না। বিজ্ঞান শাখার ‘ক’ ইউনিট থেকে ৪৮.২৫ মার্ক পেয়ে সে কৃতিত্বের সঙ্গে উত্তীর্ণ হয়। কোটার ফলাফল দিলে ১৯তম মেধাতালিকায় যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির সুযোগ পান তিনি। তামান্না এর আগে পিইসি, জেএসসি, এসএসসি ও এইচএসসিতে মোট চারটি বোর্ড পরীক্ষায় জিপিএ-৫ পেয়েছিল।

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *